অর্ধেক মিরপুর তুমি অর্ধেক ধানমন্ডি

লাঞ্চ টাইম শেষে বাইশ গজে ফিরেই চাতারার ফুলটস বল মিড উইকেট দিয়ে বাউন্ডারি হাঁকালেন মুমিনুল। তাতে ব্যাট উঁচিয়ে উদযাপন করতে করতে জানান দিলেন, হ্যাঁ, ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি পূর্ণ হলো আমার। তাতেই ক্ষণিকের নীরবতা নামে হোম অব ক্রিকেট মিরপুরের প্রেসবক্সে। গল্পে মশগুল সাংবাদিকদের ফোকাসে আসতে বেগ পেতে হয়নি মুমিনুলকে। সেঞ্চুরির উপহারস্বরুপ করতালি উপহার পেলেন তিনি।

মিরপুরে সিরিজের শেষ টেস্টে (প্রথমদিন) লড়ছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচ জিম্বাবুয়ে জিতে নিলেও আজকের ম্যাচটি দুই পক্ষের জন্যই সমগুরুত্বের। একদলের বাঁচা-মরার, অন্যদলের টিকে থাকার। তারপরও এসব নিয়ে প্রেসবক্সে আলোচনার জো নেই। সবারই আলোচনায় ধানমন্ডি ৩২ ও মাশরাফির মনোনয়ন পত্র। ওয়ানডে নেতার রাজনীতিতে আসা নিয়ে পাবলিক কে কি বলছে। গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির মতামত কিংবা সাধারণদের ট্রলের বিষয়বস্তুতে কি রয়েছে এসবই আলোচনায়।

আলোচনা ম্যাচের আগের দিন থেকেই। মিরপুর পাড়ায় বেশ ঘটা করে চাউর হয় রবিবাসরীয় দিনে মনোনয়ন কিনতে যাবেন মাশরাফি-সাকিব। তখন থেকেই হাস্যরস-আলোচনার উৎপত্তি। যদিও আলোচনার দিন রাতেই মনোয়ন নেওয়ার ব্যাপারে অপরগতার কথা জানান সাকিব। তাছাড়া প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনাও তাকে খেলায় মনোযোগ দিতে বলেন, ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবতে বলেন।

সাকিব সরে দাঁড়ালেও ম্যাচের দিন বেলা ১১টায় শেখ হাসিনার দোয়া নিয়ে ধানমন্ডি ৩২ এ অবস্থিত আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক কার্যালয়ের দিকে রওয়ানা দেন টাইগারদের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। মুহুর্তেই বিষয়টি নিয়ে কলতান ওঠে মিরপুর পাড়ায়। আর তা সারাদিনই আলোচনার বিষয়বস্তুতে থেকেছে। অর্থাৎ বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের মহারণের হিসাব-নিকাশকে একপাশে রেখে আলোচনায় শুধুই মাশরাফি।

মিরপুরের প্রেসবক্সে দোটানাময় পরিস্থিতি দেখে অন্নদাশঙ্কর রায়ের ‘পারী’ প্রবন্ধের কথা মনে পড়ে। প্রবন্ধটিতে প্যারিসের বর্ণনা দিতে গিয়ে প্রবন্ধক লিখেছিলেন, অর্ধেক নগরী তুমি অর্ধেক কল্পনা। আর আজ হোম অব ক্রিকেটে সাংবাদিকদের মনের অবস্থাও ঠিক সেরকম। অর্ধেক মিরপুর তুমি অর্ধেক ধানমনন্ডি।

One comment

  1. Taxi moto line
    128 Rue la Boétie
    75008 Paris
    +33 6 51 612 712  

    Taxi moto paris

    What’s up, after reading this amazing article i am as well glad to
    share my familiarity here with friends.