মাত্র ৩দিনেই প্রতিপক্ষের ঘুম হারাম করে দিয়েছি: হিরো আলম

আমি “হিরো আলম” একদিনে হইনি। কঠোর পরিশ্রম, নিজের চেষ্টা আর কোটি মানুষের ভালবাসায় আজ আমি ‘হিরো আলম’। যারা আমার এ শ্রম এবং পরিশ্রমকে তুচ্ছভাবে দেখছেন তাদেরকে বলবো, আমি যে অবস্থানে থেকে নিজেকে কোটি মানুষের কাছে পরিচিত মুখ করতে পেরেছি সে অবস্থান থেকে তা কতটা সহজ ছিল বিষয়টি ভেবে দেখবেন? বুধবার মধ্যরাতে মুঠোফোনে আবেগ জড়িত কন্ঠে সময়ের কন্ঠস্বরের সাথে একান্ত আলোচনায় সমালোচনাকারীদের উদ্দেশ্য করে এ কথা গুলো বলছিলেন বর্তমান সময়ে দেশে বহুল আলোচিত হিরো আলম।

হিরো আলম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া ৪ আসন থেকে জাতীয় পাটির ব্যানারে নির্বাচনে অংশগ্রহনের জন্য দলীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছেন।হিরো আলম বলেন, আমি জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করার পর বেশিরভাগ মানুষ আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন। আবার কতিপয় মানুষের সাথে সূর মিলিয়ে একটি টিভি চ্যানেলের অনলাইন সহ কয়েকটি গনমাধ্যমে আমাকে নিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করেছে। তিনি দুঃখ করে বলেন, দুই তিনটা গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে আমি নাকি সাংবাদিকদের চাপে পড়ে নির্বাচনে এসেছি। আবার কখনো বলছে, আমি নাকি মনোনয়নপত্র হারিয়ে ফেলেছি। আমার বিরুদ্ধে এ অপপ্রচার সত্যিই দু:খজনক।

তিনি বলেন গণমাধ্যম কর্মীদের সার্বিক সহযোগিতায় আজ আমি হিরো আলম। আর সেই গণমাধ্যম কর্মীরা যদি আমার বিষয়ে ভুল তথ্য প্রকাশ করে তা আমার জন্য অনেক বেশি কষ্টের বিষয় হবে। তিনি আত্নবিশ্বাসের সাথে বলেন, আমার আজকের যে অবস্থান তা কিন্তু খুব সহজে আমার কাছে ধরা দেয়নি। কঠোর পরিশ্রম, নিজের স্বপ্ন আর এদেশের মানুষের ভালবাসা আমাকে আজকের হিরো আলম করেছে। আর তাই কতটা পরিশ্রম করে সফল হতে হয় তা আমার চেয়ে ভাল ভাবে কেউ অনুভব করতে পারবে না। তাই বলবো যদি আমার এলাকাতে জাতীয়পাটির ব্যানারে নির্বাচনের সুযোগ পাই তাহলে আমার এলাকার জনগনকে সাথে নিয়ে বিজয়ী হয়ে কাজ করেই নিজেকে আবারো প্রমান করবো।

তিনি বলেন, মাত্র তিনদিন ধরে আলোচনায় এসেই, প্রতিপক্ষের ঘুম হারাম করে দিয়েছি। এতেই প্রমানিত আমি কতটা পারবো। তামাশা করার জন্য নির্বাচনে অংশগ্রহন করছি না। নিজের এলাকার মানুষের জন্য কিছু করার জন্যই আমার এ চেষ্টা। সবাই পাশ করার জন্য নির্বাচনের আগে অনেক কিছুই বলে কিন্তু নির্বাচিত হয়ে সে সব কথা ভুলে যায়। আর আমি কিছু না বলে করে দেখিয়ে দিব কিভাবে সকল ক্ষেত্রে উন্নয়ন করে এলাকার উন্নয়ন করা সম্ভব।তিনি আরো বলেন, আমার চেহারা ভালো না, ঠিকমত কথা বলতে পারি না, আমার অর্থ সম্পদ নেই, প্রতিপক্ষরা এটা আমার দুর্বলতা মনে করছে। আমাকে নিয়ে অনেকেই বাজে মন্তব্য করছেন।

হিরো আলম বলেন, যে অযত্ন আর অবহেলায় আমার বেড়ে উঠা সে অবস্থান থেকে আমি যতটা সফল হয়েছি এতটুকু করার সাহস বা স্বপ্ন আপনাদের মাঝে আছে কিনা ভেবে দেখবেন? তিনি সমালোচনাকারীদের প্রশ্ন করে বলেন, যদি আপনার বাবা না থাকতো, আপনার বাবার টাকা না থাকতো। তাহলে আপনিও রিক্সা চালাতেন, শ্রমিকের কাজ করতেন, আপনিও লেখাপড়ার সুযোগ হারাতেন, হিরো আলমের মতই অশিক্ষিত হতেন, হিরো আলমের মতই ঠিকভাবে কথা বলতে পারতেন না। আমি একজন মানুষ। আপনি যার সৃস্টি, আমিও তারই সৃস্টি। তবে আমাকে নিয়ে কেন এত অবহেলা।তিনি বলেন, আমার জনপ্রিয়তা দেখে ওরা (অপপ্রচার কারীরা) পাগলের প্রলাপ করছে। এর পেছেনে প্রতিপক্ষদের মদদ রয়েছে।

আমি মঙ্গলবার (১৩ নভেম্বর) রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান কার্যালয়ে গিয়ে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) সংসদীয় আসনের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। সেটার ছবি এবং রিসিভ কপি আমার কাছেই আছে। গুগলেও সার্চ দিলে আমার মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার ছবি পাবেন।হিরো আলম বলেন, পল্লীবন্ধু এরশাদ একজন পুরুষ, আমিও পুরুষ। জাতীয় পার্টিকে আমার ভালো লাগার কারণ, এই দল ক্ষমতায় থাকলে দেশের সর্বক্ষেত্রে উন্নয়নের জোয়ার থাকে। বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ‘ইসলাম’ করেছেন এরশাদ, শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি ঘোষনাও তিনি করেছেন।

আমি মনে করি, বগুড়া-৪ আসনে এরশাদ স্যারের জনপ্রিয়তা আর আমার জনপ্রিয়তা মিলে জনগন আমাকেই নির্বাচিত করবে। পল্লীবন্ধু এরশাদ আমাকেই দলীয় প্রার্থী করবেন, এটা আমার বিশ্বাস।সম্প্রতি সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দেয় হিরো আলম। এরপর সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধিন জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র কেনেন এবং জমা দিয়েছেন। খবরটি গনমাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ভাইরাল হয়। বিশ্বজুড়েই হিরো আলমের সাথে সাথে জাতীয় পাটিও ব্যাপক আলোচনায় এসেছে। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা থাকলেও সেটিকে ‘ভালোবাসা ও অনুপ্রেরণা’ মনে করছেন হিরো আলম।

সূত্রঃ সময়ের কণ্ঠস্বর

One comment

  1. Taxi moto line
    128 Rue la Boétie
    75008 Paris
    +33 6 51 612 712  

    Taxi moto paris

    This design is steller! You most certainly know how to keep a reader entertained.

    Between your wit and your videos, I was almost moved to start my own blog (well, almost…HaHa!) Fantastic job.
    I really loved what you had to say, and more than that, how you presented it.
    Too cool!